কন্যাদান

কন্যাদান

লজের একপাশের  ছোট্ট পার্কটার রেলিং এর পাশে টুকটুকে লাল গোলাপ টার দিকে একদৃষ্টে তাকিয়ে আছে মানালি। গোলাপটা আজ তার কাছে  ঠিক প্রেমের নয় -সম্মানের, ভালোবাসার, যেটা তার নিজের আত্মমর্যাদায় বিরাজমান। আজ তার ঠিক মন খারাপ কিনা সে জানে না তবে সে ভীষণ খুশি। 

     পিতা-মাতা নেই,অন্যের বাড়িতে পালিত হওয়া একটা মেয়ের কখনোই ঠিকঠাক সংস্কার হতে পারে না। এই অজুহাতে আজ থেকে দশ বছর আগে সে লগ্নভ্রষ্টা হয়।

      আজ সে-ই অনাথ আশ্রম থেকে দত্তক নেওয়া একটা মেয়ের সব রকমের দায়িত্ব পালন করে সসম্মানে আজ কন্যাদান করেছে।

1 1 vote
Writing Rating
Share This
Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on email
Share on linkedin
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
পাশের বাড়ির মেয়েটির খোলা গলায় গান শুনে লিখতে বসেও মন বিষন্ন হয়ে গেল রনিতার। মনে হলো ‌এ তো একটি  দারুন মাধ্যম, যার মধ্য দিয়ে …
পূর্ণিমার চাঁদ টার দিকে তাকিয়ে আনমনে কথাগুলো শুনছিল শ্রেয়া; কাকিমা তারই সামনে দাঁড়িয়ে তাকেই পরোক্ষভাবে বলছে লোকের মেয়ের তো কোনো যোগ্যতাই নেই দুটো পয়সা …
Read More
পাশের বাড়ির মেয়েটির খোলা গলায় গান শুনে লিখতে বসেও মন বিষন্ন হয়ে গেল রনিতার। মনে হলো ‌এ তো একটি  দারুন মাধ্যম, যার মধ্য দিয়ে …
পূর্ণিমার চাঁদ টার দিকে তাকিয়ে আনমনে কথাগুলো শুনছিল শ্রেয়া; কাকিমা তারই সামনে দাঁড়িয়ে তাকেই পরোক্ষভাবে বলছে লোকের মেয়ের তো কোনো যোগ্যতাই নেই দুটো পয়সা …