mentor-g5fd783e33_1280

চিন্তায় মন্বন্তর

আমি যখন শিক্ষাজীবনের শেষলগ্নে তখন বাধ্য হয়ে একটি বাচ্চাকে পড়াতে গিয়েছিলাম। বাচ্চাটির বাবা মা দুজনই চাকরি করেন। বাচ্চাটি একা থাকতে থাকতে একরোখা আর বদমেজাজি হয়ে গেছে। আমার পূর্বে অনেক স্যার তাকে পড়াতে চাইলেও পড়াতে পারেননি। প্রথম দিন বাচ্চার মা আমাকে বলেছিলেন, ছেলেটি পড়তে চায় না, কেউ তাকে পড়াতে পারেন না, তাই বলে আমার ছেলেটি লেখাপড়া শিখবে না?

কথাটি শুনে খারাপ লেগেছিলো। জেদ করেছিলাম তাকে পড়াবোই। কিন্তু পড়াতে বসলেই সে দুষ্টুমি করতো, কোন কথা শুনতো না। প্রায়দিন পড়তো না, যেতাম বসে থেকে থেকে চলে আসতাম। একদিন তাকে না পড়িয়ে গল্প শুরু করলাম। সে এক্ষেত্রে সুন্দর সাড়া দিলো। তার প্রিয় ক্রিকেট খেলা। আমি আর সে ক্রিকেট খেলতে লেগে যেতাম। সে মাছ ধরতে পছন্দ করত, দুজন ছিপ নিয়ে মাছ ধরতে চলে যেতাম। পাখি ধরার শখ ছিলো তার, পাখি ধরার নামে এ জঙ্গল ও জঙ্গল ঘুরতাম। বাড়ির কাজের মহিলা এসব কথা ছাত্রের বাবা মাকে বলে দিলেন। ছাত্রের মা আমার সাথে কথা বলবেন বলে অফিস থেকে ওদিন দ্রুত ফেরেন। আমাকে বলেন, আপনার কাছে ছেলেকে পড়তে দিয়েছি আর আপনি না পড়িয়ে এসব করে বেড়ান? মাসান্তে তো বড় অঙ্কের টাকা দিচ্ছি, নাকি?

শুনে খুব খারাপ লেগেছিলো। মুখের উপর ছাত্রকে আর পড়াবো না জানিয়ে দিলাম। ছাত্রকেও বলে দিলাম আর আসবো না। বাড়ি থেকে বের হতেই দেখি আমার ছাত্র আমার পিছু পিছু আসছে, আর বলছে কাল থেকে আমি খেলবো কার সাথে? মা তো জানে না আপনি আমাকে খেলাচ্ছলেও পড়াতেন।

আমি ছাত্রের দিকে ফিরে না তাকিয়েই চলে এলাম। যে ছাত্রের অতিষ্ঠে স্যার ছুটে যান, সে ছাত্রই অন্য স্যারের পিছু ছোটে কিসের কারণে? সঙ্গহীনতায় শিশু মরে যাচ্ছে, আর বাবা মা পড়ার বোঝা চাপিয়ে বড় করতে চাচ্ছে।

Share This
Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on telegram
Share on email
Share on linkedin
Subscribe
Notify of
guest
0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments
এই না হলে বস্তী! ভোরের কিঞ্চিৎ আলো উঁকি মারার পূর্বেই বড়রা কাজ সেরে মোটামুটি নিশ্চিন্ত। ছোটরা এবার ব্যস্ত। সারি দিয়ে ট্রেন রাস্তার পাশে বসে …
না থাকার মত দশটি ছেলে বন্ধুর চেয়ে একটি ভালো মেয়ে বন্ধু থাকা ভালো। দশটি ছেলে বন্ধুর সান্নিধ্যের চেয়ে একটি মেয়ে বন্ধুর সান্নিধ্য অনেক বেশী …
বেশ কয়েক মাস পরে ছবেদার বাবা মা ছবেদাকে দেখতে এসেছেন। বাবা মাকে পেয়ে মনের কষ্ট ছবেদা বলতে থাকলো। বললো, বাবা, আমি আর টাকওয়ালা জামাইয়ের …
আমি ওর মনের ক্যামেরায় বন্দী হয়েছিলাম অনেক আগেই। আমার সরল মন তা ঘূণাক্ষরেও বুঝতে পারেনি। যেদিকেই যেতাম ওর দেখা মিলতো। ভাবতাম, ও এমন ঘুরেই …
সৌহার্দ্যকে মোটেও পছন্দ করে না সৌরিন্দ্রীয়া। কিন্তু সৌরিন্দ্রীয়ার মা সুতপা সৌহার্দ্যকেই নিজের মেয়ের যোগ্য মনে করেন। এ কারণে সৌরিন্দ্রীয়ার সাথে মায়ের বেশ অঘোষিত সম্পর্ক …
Read More
এই না হলে বস্তী! ভোরের কিঞ্চিৎ আলো উঁকি মারার পূর্বেই বড়রা কাজ সেরে মোটামুটি নিশ্চিন্ত। ছোটরা এবার ব্যস্ত। সারি দিয়ে ট্রেন রাস্তার পাশে বসে …
না থাকার মত দশটি ছেলে বন্ধুর চেয়ে একটি ভালো মেয়ে বন্ধু থাকা ভালো। দশটি ছেলে বন্ধুর সান্নিধ্যের চেয়ে একটি মেয়ে বন্ধুর সান্নিধ্য অনেক বেশী …
বেশ কয়েক মাস পরে ছবেদার বাবা মা ছবেদাকে দেখতে এসেছেন। বাবা মাকে পেয়ে মনের কষ্ট ছবেদা বলতে থাকলো। বললো, বাবা, আমি আর টাকওয়ালা জামাইয়ের …
আমি ওর মনের ক্যামেরায় বন্দী হয়েছিলাম অনেক আগেই। আমার সরল মন তা ঘূণাক্ষরেও বুঝতে পারেনি। যেদিকেই যেতাম ওর দেখা মিলতো। ভাবতাম, ও এমন ঘুরেই …
সৌহার্দ্যকে মোটেও পছন্দ করে না সৌরিন্দ্রীয়া। কিন্তু সৌরিন্দ্রীয়ার মা সুতপা সৌহার্দ্যকেই নিজের মেয়ের যোগ্য মনে করেন। এ কারণে সৌরিন্দ্রীয়ার সাথে মায়ের বেশ অঘোষিত সম্পর্ক …

No connection